1. [email protected] : admin :
আগামী ২০ অক্টোবর চেয়ারম্যান পদে উপ-নির্বাচন, বাকেরগঞ্জে কাফনের কাপড় পড়ে নির্বাচনী মাঠে বিএনপি প্রার্থী | Monpura Times
সংবাদ শিরোনাম :
তজুমদ্দিনে স্বামীর দ্বিতীয় বিয়ের প্রতিবাদ করায় স্ত্রীকে অমানুষিক নির্যাতন তজুমদ্দিনে সুদের টাকার জন্য প্রবাসীর স্ত্রীকে হাত বেঁধে নির্যাতন ফ্রান্সে মহানবীর ব্যঙ্গচিত্র প্রদর্শন করার প্রতিবাদে লালমোহনে বিক্ষোভ ও প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত বোরহানউদ্দিনে মহানবী(সা.)-কে নিয়ে ব্যঙ্গচিত্র প্রদর্শনের প্রতিবাদে বিক্ষোভ-সমাবেশ জননেত্রী, জনগণ চাইলে মেয়র হয়ে ফের ফিরে আসবো -মেয়র রফিক দিনাজপুর পৌরসভার ১ ঘন্টার প্রতিকী মেয়রের দায়িত্ব পালন করলেন সুইটি তজুমদ্দিনে নুরানি মাদ্রাসার শিশু শিক্ষার্থীকে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে মামলা ভোলা পলিটেকনিক ইন্সটিটিউটের শিক্ষার্থীদের ৮ দফা দাবিতে মানববন্ধন তজুমদ্দিনে সুপারী বাগান নস্টের প্রতিবাদ করায় বৃদ্ধকে পিটিয়ে আহত, হাসপাতালে ভর্তি ভোলায় পুলিশ সুপার হলেন দশম শ্রেণীর ছাত্রী
বিজ্ঞপ্তি :
আমাদের পত্রিকায় আপনার ব্যবসার বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন [email protected] অথবা [email protected]
আগামী ২০ অক্টোবর চেয়ারম্যান পদে উপ-নির্বাচন, বাকেরগঞ্জে কাফনের কাপড় পড়ে নির্বাচনী মাঠে বিএনপি প্রার্থী

আগামী ২০ অক্টোবর চেয়ারম্যান পদে উপ-নির্বাচন, বাকেরগঞ্জে কাফনের কাপড় পড়ে নির্বাচনী মাঠে বিএনপি প্রার্থী

আল মামুন, ব্যুরো চীফ(বরিশাল)

সময় যতই ঘনিয়ে আসছে বাকেরগঞ্জের কলসকাঠী ইউনিয়ন পরিষদ উপ-নির্বাচনের মাঠ ততই উত্তপ্ত হয়ে উঠছে।

শনিবার আওয়ামীলীগ ও বিএনপি সমর্থিত দুই চেয়ারম্যান প্রার্থীর সমর্থকদের মাঝে সংঘর্ষে উভয় দলের কার্যালয় ভাঙচুর ও আহত হওয়ার মধ্যদিয়ে ভোটের দিনের পরিস্থিতি নিয়ে উৎকন্ঠিত ইউনিয়নের সাধারণ ভোটাররা।

শুধুমাত্র চেয়ারম্যান পদে ভোটগ্রহনের কারণে দলের কর্মী-সমর্থকরা সরাসরি চেয়ারম্যান প্রার্থীর গণসংযোগ সহ অন্যান্য কর্মকান্ড নিয়ে সারাক্ষন ব্যস্ত। উভয় প্রার্থীর কর্মী-সমর্থকদের মোটরসাইকেল মহড়ায় বিগত দিনগুলোতে নির্বাচনের মাঠ কিছুটা ঠান্ডা থাকলেও শেষ মুহুর্তে এসে উত্তাপ ছড়িয়ে যায়।
তবে বাকেরগঞ্জ উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা এবং থানার ওসি নিশ্চিত করেছেন- সুষ্ঠু পরিবেশে ২০ অক্টোবর ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।

তারা বলেন, ভোট কেন্দ্রে যেকোনো অপ্রীতিকর ঘটনা প্রতিরোধে সকল ধরনের প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে।

এদিকে, শনিবার সন্ধ্যায় দলীয় কার্যালয়ে হামলা চালিয়ে ভাঙচুর এবং ছেলে ও ভাতিজাকে কুপিয়ে আহত করার পর গতকাল রোববার কাফনের কাপড় পড়ে নির্বাচনী অফিসে অবস্থান নিয়েছেন বিএনপি মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী শওকত হোসেন হাওলাদার।

রবিবার সকাল ৮টা থেকে বিকাল সাড়ে ৫টা পর্যন্ত (রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত) তিনি একাই নির্বাচনী কার্যালয়ে অবস্থান করেছেন।

আগামী মঙ্গলবার (২০ অক্টোবর) উপ-নির্বাচনের দিন পর্যন্ত তিনি তার এই অবস্থান কার্যক্রম চালিয়ে যাবেন বলে সাংবাদিকদের জানিয়েছেন।

শওকত হোসেন হাওলাদার জানান, বিএনপির নির্বাচনী অফিসে শনিবার হামলা ও ভাঙচুর চালিয়ে ওই রাতেই আওয়ামীলীগ প্রার্থী ফয়সাল ওয়াহিদ মুন্না তালুকদারের লোকজন নিজেরাই আওয়ামীগ অফিস ভাঙচুর করে বিএনপির শতাধিক নেতাকর্মীর নামে থানায় অভিযোগ দেওয়া হলে গ্রেপ্তার ও হামলা আতঙ্কে এলাকা ছাড়া নেতাকর্মী শূণ্য অবস্থায় তিনি রবিবার একাই নির্বাচনী কার্যালয়ে আসেন।

বিএনপি প্রার্থী অভিযোগ করে বলেন, শনিবার সন্ধ্যায় বাকেরগঞ্জ পৌর মেয়র ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক লোকমান হোসেন ডাকুয়ার নেতৃত্বে আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীরা কলসকাঠী ইউপি উপ-নির্বাচনে বিএনপি মনোনীত প্রার্থীর প্রধান নির্বাচনী কার্যালয়ে হামলা-ভাঙচুর চালানো হয়। হামলায় বিএনপি-যুবদলের ৫ জন নেতাকর্মী গুরুতর আহত হয়।

আহতরা হলেন- বিএনপির প্রার্থী শওকত হোসেন হাওলাদারের ছেলে কামাল হাওলাদার (৪৪), ভাতিজা সাইফুল ইসলাম (২৮), রাজা হাওলাদার (২৫), আরিফ তালুকদার (২২) ও সোহাগ (৩২)।

অপরদিকে আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থী ফয়সাল ওয়াহিদ মুন্না তালুকদার অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। তিনি বলেন, শনিবার বিএনপির লোকজন ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ অফিস ভাঙচুর করেছে। এসময় বিএনপি প্রার্থীর লোকজন বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রীর ছবিও ভাঙচুর করেছে।

স্থানীয় সূত্র জানিয়েছে, উপ-নির্বাচনকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষ এবং বিএনপি নেতাকর্মীদের এলাকাছাড়া এবং বিএনপি প্রার্থীর কাফনের কাপড় পড়ে অবস্থান করার ঘটনায় এলাকায় থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে। ভোটগ্রহণের দিন রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশঙ্কা করছেন সাধারণ ভোটাররা।

শনিবার রাতের সংঘর্ষের ঘটনায় গতকাল রোববার সকাল থেকে সেখানে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। উদ্ভুত পরিস্থিতিতে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (বাকেরগঞ্জ সার্কেল) সুদীপ্ত সরকার রোববার ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

বাকেরগঞ্জ থানার ওসি আবুল কালাম বলেন, শনিবার আওয়ামীলীগ অফিসে ভাঙচুরের ঘটনায় লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। নির্বাচনের মাঠ শান্ত রাখার জন্য পুলিশ সহ আইনশৃঙ্খলাবাহিনীর সকল ধরনের প্রস্তুতি সম্পন্ন।

বরিশাল জেলা সিনিয়র নির্বাচন অফিসার মোহাম্মাদ নূরুল আলম বলেন, দুই চেয়ারম্যান প্রার্থী তাদের নির্বাচনী অফিস ভাঙচুরের অভিযোগ দিয়েছে। আমরা তদন্তপূর্বক প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবো।

তিনি আরও বলেন, নির্বাচনে সকল ধরণের অনিয়ম ও বিশৃঙ্খলা পরিস্থিতি এড়ানোর জন্য এবং ভোটারা যাতে নির্বিঘ্নে ভোটপ্রয়োগ করতে পারে তার সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে।

সংবাদটি আপনার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




সর্বশেষ খবর

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি । সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত © monpuratimes.com 2020.
Design & Developed BY ThemesBazar.Com